ইউটিউব চ্যানেলে মনিটাইজেশন

১০০% ইউটিউব চ্যানেলে মনিটাইজেশন পাওয়ার সহজ উপায় – টিপস ২০২৪

ইউটিউবে মনিটাইজেশন পাওয়া আর একটি স্বপ্ন পূরণ হওয়ার। আমরা সবাই জানি, বর্তমানে ইউটিউব থেকে টাকা ইনকাম করা যায়। ইউটিউব থেকে বিভিন্ন উপায়ে ইনকাম করা যায়। তার মধ্য লাইফ টাইম ইনকাম করার উপায় হল গুগল এডসেন্স মানে ইউটিউব মনিটাইজেশন করা।

তাই ইউটিউবে মনিটাইজেশন করার জন্য আমরা ভালো ভালো ভিডিও আপলোড করতেছি ইউটিউব চ্যানেলে এবং ভিডিও ভাইরালও হচ্ছে। youtube চ্যানেলে ১০০০ সাবস্ক্রাইব ও ৪ হাজার ঘন্টা ওয়াচ টাইম পূরণ করার পরও অনেক youtube চ্যানেলে মনিটাইজেশন দিচ্ছে না। এর কারণ কি? কেন ইউটিউব মনিটাইজেশন দিচ্ছে না? এই সকল বিষয়ে আজকের পোস্টে আমি আপনাদেরকে জানাবো, তাই মনোযোগ সহকারে পথটি পড়ুন আশা করি আপনাদের অনেক উপকার হবে।

 

ইউটিউব চ্যানেলে মনিটাইজেশন না হওয়ার কারণগুলো

১. অন্যের ভিডিও ক্লিপ ব্যবহার করা।
২. অন্যের ভিডিও কপি পেস্ট করা।
৩. অন্যের থামনাইলে ব্যবহার করা।
৪. অন্যের ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক ব্যবহার করা।
৫. একই ভিডিও বার বার আপলোড করা।
৬. অন্যের ভিডিও থেকে ছোট ছোট ক্লিপ নিয়ে একটি ভিডিও তৈরি করা।
৭. নাটক বা মুভি রিভিউ করা।
৮. অন্যের ভিডিও সামনে রেখে রোস্টিং করা।
৯. Sub 4 Sub করে ১০০০ সাবস্ক্রাইব পূরণ করা।
১০. নিজে নিজে বা নিজের কিছু মোবাইল, কম্পিউটার দিয়ে নিজের ভিডিও দেখে ওয়াচ টাইম পূরণ করা।
১১. AI দিয়ে ভিডিও বানানো।
১২. ফেক বুস্টিং করা।

আপনি যদি উপরের এই সকল উপায় ব্যবহার করেন তাহলে আপনি কোনদিনই ইউটিউব চ্যানেল মনিটাইজেশন করতে পারবেন না। একটা সময় ছিল সে সময় এই ধরনের কনটেন্ট ব্যবহার করেও ইউটিউব মনিটাইজেশন পাওয়া যেত। কিন্তু এখন সময় আলাদা তাদের সিস্টেমও আলাদা তাই এখন এই ধরনের কন্টেন্ট ব্যবহার করে মনিটাইজেশন পাওয়া অসম্ভব।

 

ইউটিউব চ্যানেলে সহজেই মনিটাইজেশন পাওয়ার ভুল ধারণা

অনেক ইউটিউবার বলে যে কপি পেস্ট করেও ইউটিউব চ্যানেল মনিটাইজেশন করা যায়। এছাড়া উপরে যে সকল বিষয় বললাম সে বিষয় নিয়ে কাজ করলেও ইউটিউব মনিটাইজেশন দেয়। কিন্তু এটা সম্পূর্ণ ভুল ধারণা যদিও মনিটাইজেশন দেয় তাহলে ১০০% এর মধ্যে ২%। আর বাকিগুলো কখনোই মনিটাইজেশন দিবে না।

আপনারা কি কখনো দেখেছেন যে ইউটিউবার আপনাদেরকে এই টিপসগুলো দিয়েছে বা দিচ্ছে
সে কি কখনোএই টিপসগুলো ব্যবহার করে
একটি ইউটিউব চ্যানেল মনিটাইজেশন করতে পেরেছে?
সে কি কখনো আপনাদেরকে লাইভ প্রুফ দেখাইছে?

জানি, সে কখনো দেখায়নি লাইভ প্রুফ কোন ইউটিউব ভিডিওতে এবং কোনদিন সে দেখাতেও পারবেনা। কারণ এই সকল কনটেন্ট ব্যবহার করে কখনই মনিটাইজেশন পাওয়া সম্ভব হয় না।

তাহলে বলতে পারেন ভাই অনেকেই তো দেখায় তার এই চ্যানেলে মনিটাইজেশন পেয়েছে এই কনটেন্ট ব্যবহার করে বা ওই চ্যানেলে পেয়েছে।

 

তাহলে কিভাবে সে তার ওই চ্যানেলগুলো মনিটাইজেশন পেল?

আসলে যারা এই ধরনের টিপস দিয়ে থাকে তাদের দেখুন একটি মাত্র youtube চ্যানেলে তার মনিটাইজেশন করা থাকে এবং সেই চ্যানেলে বিভিন্ন ধরনের টিপস শেয়ার করে থাকে যেগুলো কার্যকর নয়। আর যারা দেখায় আমি এই ইউটিউব চ্যানেলটিতে এই ধরনের কনটেন্ট ব্যবহার করে মনিটাইজেশন পেয়েছি তারা সম্পূর্ণটাই মিথ্যা কথা বলেছে। কারণ তার ওই ইউটিউব চ্যানেলটিতে মনিটাইজেশন পাওয়ার গোপন তথ্যগুলো আপনাদের সাথে শেয়ার করবে না। তারা মনিটাইজেশন পাওয়ার পর বিভিন্ন ধরনের ফালতু ফালতু ভিডিও আপলোড করে রাখে আর মানুষদের দেখায় যে তারা ঐ সকল ভিডিও আপলোড করে মনিটাইজেশন পেয়েছে। আর যারা তাদের ঐ সকল ভিডিও দেখে বিশ্বাস করে তারা একদমই বোকা।

দেখুন ভাই, তারা যদি এই সকল কপিরাইট কনটেন্ট ব্যবহার করে মনটাজেশন পাইতো তাহলে তারা হাজার হাজার ইউটিউব চ্যানেল মনিটাইজেশন করে বিক্রি করে দিতে পারতো, বর্তমান মার্কেটে অনেকেই মনিটাইজেশন ইউটিউব চ্যানেল কিনতে চায় এবং তার মূল্য অনেক বেশি। যা সে ওই ব্যক্তিটা যে আপনাদেরকে এই ধরনের টিপস দিচ্ছে সে কিন্তু হাজার হাজার ইউটিউব চ্যানেল মনিটাইজেশন করে বিক্রি করে কোটি কোটি টাকা ইনকাম করতে পারতো। তাহলে আর কিছু ভিউস এর জন্য আপনাদেরকে এই ধরনের টিপস দিত না। আশা করি বুঝতে পারছেন আমি কি বলতে চাচ্ছি।

মোবাইলে ভিডিও এডিটিং করার শেরা ৫টি এন্ড্রয়েড অ্যাপস – 2024

আবার দেখবেন অনেকেই এই ধরনের কনটেন্ট ভিডিও আপলোড করতেছে কিন্তু তার youtube চ্যানেলটি মনিটাইজেশন করা। এটা দেখে অনেকেই আরেকটা বোকামি কাজ করে। কারণ সে দেখতেছে সে ওই ধরনের কন্টেন্ট ব্যবহার করে তো মনিটাইজেশন ইউটিউব চ্যানেল চালাচ্ছে তাহলে আমি কেন পারব না। কিন্তু আপনি তো জানেন না সে ওই ধরনের কনটেন্ট ব্যবহার করার আগে মনিটাইজেশন পাওয়ার জন্য অন্য পথ ব্যবহার করেছেন। এবং সে মনিটাইজেশন পাওয়ার পর এই ধরনের কনটেন্ট ব্যবহার করতেছেন।

ইউটিউব চ্যানেল মনিটাইজেশন করার নিয়ম

তাহলে বন্ধুরা চলুন একটি সঠিক পদ্ধতি আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করি যেটি আমি নিজে দীর্ঘ প্রায় ৫-৬ বছরে শিখেছি।

বর্তমানে সবাই একই ক্যাটাগরিতে ভিডিও তৈরি করে না তারা ভিন্ন ভিন্ন ক্যাটাগরিতে ভিডিও তৈরি করে। আর বর্তমানে ইউটিউবে কয়েক শত ক্যাটাগরি রয়েছে। তাই প্রথমেই যেটি জানতে হবে সেটি হল আপনি যে ক্যাটাগরিতে এই ভিডিও তৈরি করেন না কেন সেটি ১০০% আপনার নিজস্ব হতে হবে। এবং আপনার ভিডিওর কোয়ালিটি ভালো করতে হবে। তবে হয়তো অনেকেই নতুন তাদের নিজস্ব ভিডিও হবে কিন্তু কোয়ালিটিটা তেমন একটা ভালো হবে না। তাদেরকে বলব আস্তে আস্তে ভিডিওর কোয়ালিটি বাড়াতে পারবেন এবং ভিডিও করতে করতে শিখতে পারবেন তাই ধৈর্য ধরে নিজস্ব ভিডিও আপলোড করার চেষ্টা করুন তাহলেই আপনি খুব দ্রুত ইউটিউব চ্যানেলে মনিটাইজেশন করতে পারবেন।

১০০% ইউটিউব চ্যানেলে মনিটাইজেশন পাওয়ার উপায়

ইউটিউবে কিছু কিছু ক্যাটাগরি রয়েছে তারমধ্যে যে ক্যাটাগরি দিয়ে ভিডিও করলে ১০০% মনিটাইজেশন পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তা হল:
১. টেকনিক্যাল: আপনি টেক ক্যাটাগরি নিয়ে ভিডিও তৈরি করলে মনিটাইজেশন পাওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে তবে এরমধ্যে যে সকল বিষয় নিয়ে কাজ করতে পারেন:

  • অ্যান্ড্রয়েড টিপস এন্ড ট্রিকস
  • অনলাইন ইনকাম টিপস
  • টেকনিক্যাল সমস্যা সমমাধান
  • ভাইরাল এপস রিভিউ
  • ভিডিও এডিটিং শেখানো
  • সকল সিমের এমবি, মিনিট এর ভিডিও

টেক বিষয় ভিডিও করলে হয়তো আপনার ভিউ কম হবে কিন্তু আপনার মনিটাইজেশন হওয়ার সম্ভাবনা ১০০% থাকবে। এছাড়া এই সকল ভিডিওতে ইনকামও বেশি হয় অল্প ভিউতে।

২. ব্লগিং: বর্তমানে ব্লগিং এর ভিডিও সবাই দেখতে পছন্দ করে। যেমন-

  • মোটর সাইকেল ব্লগিং
  • ট্রাভেল ব্লগিং
  • ফুড ব্লগিং
  • সুন্দর স্থানের ব্লগিং

ব্লগিং ভিডিও করতে খরচ বেশি হয়। তবে যদি আপনার নিজস্ব ভালো কোয়ালিটি ভিডিও হয় তাহলে দ্রুত ১০০% মনিটাইজেশন পাবেন।

আরো বিভিন্ন ধরনের ক্যাটাগোরি রয়েছে যে সকল ভিডিও করতে আপনাকে ব্যয় করতে হবে। তবে আপনি যদি কোন ব্যয় ছাড়া আপনার একটি নিজস্ব ইউটিউব চ্যানেল মনিটাইজেশন করতে চান। তাহলে আপনি টেক ক্যাটাগরি নিয়ে ভিডিও করতে পারেন। তাহলে আপনি ১০০% ইউটিউব চ্যানেলটি মনিটাইজেশন করতে পারবেন। এবং মনিটাইজেশন হওয়ার পর আপনি চাইলে যেকোনো ক্যাটাগরি নিয়ে ভিডিও আপলোড করতে পারেন। তাতে কোন সমস্যা হবে না। আর যারা আপনাদেরকে মনিটাইজেশন ইউটিউব চ্যানেল দেখায় যে ঐ সকল কনটেন্ট করে। তারা আসলে আগে নিজস্ব কন্টেন্ট ব্যবহার করে মনিটাইজেশন পাওয়ার পর তাদের ক্যাটাগরি কনটেন্ট পরিবর্তন করে।

সহজে ইউটিউব চ্যানেল মনিটাইজেশন

অনেকেই তাদের ফেস দেখায় না বা ক্যামেরার সামনে আসতে চায় না। তারা চাইলে শুধু মাএ স্ক্রিন রেকর্ড করে ভিডিও বানিয়ে ইউটিউব চ্যানেল মনিটাইজেশন করতে পারবেন। যারা স্ক্রিন রেকর্ড ভিডিও করবেন তারা অনলাইন ইনকাম ক্যাটাগরি নিয়ে ভিডিও তৈরি করুন তাহলে আপনি ১০০% ইউটিউব চ্যানেল মনিটাইজেশন করতে পারবেন।

 

Post Share Now

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *