High Protine 8 Foods – কম দামে বেশি প্রোটিন খাবারের তালিকা

দেখুন আমাদের মধ্যে অধিকাংশ লোক মনে করে যারা ওয়ার্ক আউট করে বা কোন ধরনের ফিজিক্যাল একটিভিডি করে শুধুমাত্র ওদেরই প্রোটিনে দরকার হয়। কিন্তু আপনি এখানে ভুল ভাবছেন কেননা যে কোন মানুষের হেলদি আর ফিট থাকার জন্য ০.৮ গ্রাম পার কেজি ও বডি ওয়েটে হিসাবে প্রোটিনের দরকার হয়।

মানে কোন ব্যক্তির ওজন যদি ৬০ কেজি হয় তো ওকে কমসেকম প্রতিদিন ৪০ থেকে ৪৫ গ্রাম প্রোটিন চাই। যদিও ফিড থাকতে চাই আর হেলদি থাকতে চাই তাহলে আর ওখানেই যদি আপনি কোন ধরনের ফিজিক্যাল এক্টিভিটি করেন, এক্সাইজ করেন, জিম যান তখন এই প্রোটিনে মাত্রা আরো বেশি বেড়ে যাবে।

আর কেজি ও বডি ওয়েটের হিসেবে আপনাকে ১.৫ থেকে ২ গ্রামের প্রোটিন এর দরকার পড়ে। মানে যদি আপনার ওজন ৬০ কেজি হয় তো আপনাকে ৮০ ৯০ গ্রাম প্রোটিন প্রয়োজন। তখনি আপনার মাসেলস দ্রুত ভাবে তৈরি হবে আর আপনার বডি তৈরি হতে থাকবে।

এজন্য আজকের আমি আপনাকে কিছু এমন ফুডস এর ব্যাপারে বলবো যেটাতে প্রোটিনের মাত্রা সবথেকে বেশি হয়।

ডিম

আমাদের প্রথমে যেটা তা হলো ডিম। আপনি একটা পুরো ডিমে প্রায় ৬ গ্রাম প্রোটিন পেয়ে যাবেন আর যেটাতে ৪ গ্রাম প্রোটিন এর সাদা অংশ হয় আর বাকি ২গ্রাম এর হলুদ অংশ হয় আর এর হলুদ জায়গাতে প্রোটিন ছাড়া আপনি ৫গ্রাম অব্দি ফ্যাটও পেয়ে যাবেন। আর এই জন্য যদি আপনি ডিম থেকে শুধুমাত্র প্রোটিনকে নিতে চান তাহলে আপনাকে শুধুমাত্র সাদা অংশটুকু খাওয়া উচিতআর ডিমের সাদা অংশে পাওয়া যাওয়া প্রোটিন।

এটা হল যে এটি আমাদের বডি পুরোপুরি হবে অ্যাপস অফ করে নেয় আর যার ফলে এর পুরো ফায়দা আমাদের বডি পেয়ে যায়। যদি আপনি আপনার ওয়েটকে গেম করতে চান তো আপনি এর হলুদ অংশের সাথে সাথে পুরো ডিমটাকে খেতে পারেন।কিন্তু খেয়াল রাখবেন যে যদি আপনি এর হলুদ অংশ কে খাচ্ছেন তো আপনাকে একদিনে চারটি ডিমের থেকে বেশি খাওয়া যাবে না।

যদি আপনি শুধুমাত্র সাদা অংশকে খান তাহলে আপনি একদিনে ৮ থেকে দশটি ডিম অবধি খেতে পারেন।

সোয়াবিন

এটা অনেক কম দামে অনেক পরিমাণে প্রোটিন প্রভাইড করে। আপনি ১০০ গ্রাম সোয়াবিনে প্রায় ৫২ গ্রাম প্রোটিন ৩৩ গ্রাম কাঁপস ০% পার্সেন্ট আপনি ফ্যাট পাবেন। মানে প্রোটিনের জন্য এটা একটা বেস্ট শোর্স কিন্তু সোয়াবিনকে খাওয়ার সময় আপনাকে একটা কথার খেয়াল রাখতে হবে। যে আপনি এর একদিনে ১০০ গ্রামের থেকে বেশি সেবন করবেন না। কেননা এতে ১ রকমের হরমোন হয় যেটা আমাদের বডির হরমোনকে ডিস ব্যালেন্স করে দেয় আর যার ফলে আমাদের হেলথ খারাপ হতে পারে।

এইজন্য আপনি এর থেকে প্রোটিন তো নিতে পারেন কিন্তু আপনি এর প্রয়োগ কম মাত্রাই করবেন।

বাদাম

এটাও প্রোটিনে একটা অনেক ভালো সর্ষে আপনি ১০০ গ্রাম বাদামে ২৮গ্রাম প্রোটিন ১০০ গ্রাম ক্রাফস আর প্রাইস হয় ৫০গ্রাম অব্দি ফ্যাট পেয়ে যাবেন। আর যদি আপনি আপনার ওজনকে বাড়াতে চান তাহলে তো আপনি এই প্রোটিনকে নিতেই পারেন।

কিন্তু আপনি যদি আপনার ফ্যাটকে লস করতে চান ওয়েট লস করতে চান, আপনার ওজনকে কমাতে চান তো আপনাকে বাদাম সেবন করা যাবে না।

কেননা এটি অনেকটা মাত্রাতেই ফ্যাটের মাত্রা থাকে যেটা আপনার ওজনকে কমানোর জায়গায় উল্টো বাড়াতে থাকবে।

ছোলা ও ডাল

কাঁচা ছোলা মুগ ডাল আর যত ধরনের ডাল হয়। ডাল কে প্রোটিনে একটা অনেক ভালো সর্টস মানা হয়। কারণ আপনি ১০০ গ্রাম ডালে ২৫ থেকে ২৮গ্রাম অব্দি প্রোটিন পাবেন আর প্রাইস হয় ৬০ থেকে ৬৫গ্রাম অব্দি কাজ পাবেন আর ওখানেই ফ্যাটের যদি কথা বলি তাহলে মাত্র ১ থেকে ২গ্রাম ফ্লাট থাকে।

আর এটাই কারণ যে যারা তার ওয়েট কে দ্রুত বাড়াতে চায় তারা তার খাবারে ডালকে অবশ্যই যোগ করে থাকে।

পনির

পনিরে ১০০ গ্রামে প্রায় ১৮ গ্রাম প্রোটিন আর ফ্যাট প্রায় ২১ গ্রাম আর কাবস ৫ থেকে ৬গ্রাম থাকে। কিন্তু দেখুন যে পনির হয় এটি ১ ধরনের কমপ্লিট প্রোটিন ফুট হয় কেননা এতে নটি অ্যামাইনাসই পাওয়া যায়।

এইজন্য যারা ননভেজ খায় না ওদের জন্য পনির সব থেকে বেস্ট ফ্রেশ হয় প্রোটিনের জন্য।

মিল্ক

মানে দুধ আপনাকে প্রায় এ ৫০০ এমএল দুধে ১৭ থেকে ১৮ গ্রাম প্রোটিন আপনি পেয়ে যাবেন ৫গ্রাম ফ্যাট পাবেন আর প্রায় ২০গ্রাম অব্দি কাউস আর ভরপুর মাত্রায় ক্যালসিয়াম পাওয়া যায়।

আর যেটা আপনার হারকে মজবুত বানানোর জন্য সবথেকে বেশি জরুরী হয় দেখুন আপনি যেকোনো ধরনের ফিজিক্যাল অ্যাক্টিভিটি করেন বা রানিং করেন বা ওয়ার্কআউট করেন। যদি আপনার হার মজবুত না থাকে তো আপনি আপনার সুন্দর সুদল বডি কখনোই বানাতে পারবেন না। কেননা মিল্ক যে প্রোটিন পাওয়া যায় না ওটা একটা স্লো ডায়াজেস্টি প্রোটিন হয়।

প্রোটিনের পুরো ফায়দা নিতে যান তো আপনাকে রাত্রে ডিনারের পরে আর ঘুমানোর ১০ থেকে পনরো মিনিট আগে পান করা উচিত।

মাছ

আলাদা আলাদা মাছে আলাদা আলাদা প্রোটিনে মাত্রা থাকে। কিন্তু যেই মাছ ভেতর থেকে সাদা হয় ওতে প্রোটিনের মাত্রা অধিক পাওয়া যায়। আপনাকে ১০০ গ্রাম মাছে ২৫গ্রাম প্রোটিন ১ থেকে ২গ্রাম ফ্যাট আর কাঁচ প্রায় ৬০ থেকে ৮গ্রাম অব্দি পাওয়া যায়। মাছের ফ্যাটের মাত্রা কম হয় উপর থেকে কার্ড কম হয় এজন্য এটা একটা প্রোটিনের ভালো শোস মানা হয়।

আর এটাই কারণ যে বড় বড় বডিবিল্ডারস প্রোটিনে মাংসের জায়গায় মাছকে খাওয়া পছন্দ করে।

চিকেন ব্রেস্ট

এতে আপনি ১০০ গ্রামে প্রায় ৩১ গ্রাম প্রোটিন পাবেন আর ফ্যাক্ট জিরো পার্সেন্ট মানে জিরো গ্রাম ফ্যাক্টরি আর ওখানেই গারবেল যদি কথা বলি তো ওটাই ৩৪ থেকে ৩৫গ্রাম কাউন্সও পাওয়া যায়।

এই ছিল আজকের ভিডিও ৮ ধরনের হাই প্রোটিন ফুড যেটা আপনি আপনার ডায়েটে যোগ করে আপনার প্রোটিন ইনটেক কে পূর্ণ করতে পারবেন।

Post Share Now

দ্রুত আপডেট পেতে ফলো করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *